গান শুনা এখন আর গুনাহ মনে হয় না৷

সাধারণ থেকে অসাধারণ৷ ধনী কিংবা গরিব৷ সুস্থ সবল কিংবা অসুস্থ দুর্বল৷ বুদ্ধিমান কিংবা বুদ্ধিহীন৷ ছোট থেকে বড়৷ সকলেই গান বা music শুনে৷ এমন কেউই নেই, যে music শুনে না৷

তবে যারা আল্লাহভীরু ব্যক্তি তাঁরা গান বা music শুনেন না৷  এবং যারা পরহেজগার, মুমিন তাঁরা গান বা music শুনাকে গুনাহ মনে করেন৷ আর এই ফিতনা থেকে বেঁচে থাকতে চেষ্টা করেন৷

কিন্তু অধিকাংশ ব্যক্তিই গান বা music শুনেন৷ অধিকাংশ বলার কারণ হলো, অনেক ক্ষেত্রে অনিচ্ছাকৃত ভাবেও গান বা music শুনতে হয়৷

যেমন ধরুন, আপনি সোস্যাল মিডিয়া ব্যবহার করছেন৷ হঠাৎ করে কোন গান বা music বেজে উঠল, যার জন্য আপনি মোটেই প্রস্তুত ছিলেন না৷ তড়িঘড়ি করে কেটে দিলেন৷ অথবা কোন বাড়িতে, গাড়িতে গান বা music চালাচ্ছে কিন্তু আপনি বন্ধ করতে পারছেন না৷ তাই অনিচ্ছাকৃত হলেও আপনাকে গান শুনতে হচ্ছে৷ যদিও অনিচ্ছাকৃত ভাবে গান শুনা ভিন্ন ব্যাপার৷ তারপরেও এটা গান শুনার মধ্যেই পরে৷

এরপরে অনেকে ইচ্ছাকৃত ভাবে গান বা music শুনেন৷ যারা ইচ্ছাকৃতভাবে গান শুনে, তাঁরা হয়তো গান শুনাকে গুনাহ মনে করেন না৷ কেননা, অনেকেই বিভিন্ন ব্যান্ডের গান শুনে৷ এবং কে কোন ব্যান্ড পছন্দ করে? কার কোন ব্যান্ড প্রিয়? এবং কোন ব্যান্ড সেরা? তা নিয়ে রীতিমতো যুদ্ধ করে৷

এইতো সম্প্রতি জাতিসংঘে BTS নামে একটি ব্যান্ড গান গায় এবং ড্যান্স দেয়৷ যার ফলে উঠে আসে তাঁরা৷ এর আগে আমার মতো যারা BTS চিনতো না তাঁরাও এখন থেকে BTS চিনে৷ বাংলাদেশেও BTS এর অনেক ভক্ত রয়েছে, যারা নিয়মিত তাদের গান শুনে৷ BTS ব্যান্ড সম্পর্কে আমি যতটুকু জেনেছি তা হলো,

BTS সাত সদস্যের একটি কোরিয়ান বয় ব্যান্ড৷ যারা বাংতান বয়েজ নামেও পরিচিত৷ BTS এর পূর্ণরূপ হলো, Big Hist Music ব্যান্ড৷ তারা ২০১৩ সালে আত্মপ্রকাশ করে৷ তাদের ফ্যানসদের কে আর্মি বলা হয়৷ এই আর্মি মানে প্রচলিত army নয়৷ এর পূর্ণরূপ হলো,  Adorable Representative M.C for Youth.

আরো পড়ুনঃ  সাম্প্রদায়িক উষ্ণতা ছড়ায় কারা৷

এই ব্যান্ডের ভি, জে-হোপ, আরএম, জিন, জিমিন, জংকুক, সুগা সাত জনের কেউই কোন ধর্মে বিশ্বাস করে না৷ তবে তাদের ছয় জন জন্মগত ভাবে খ্রিস্টান এবং একজন জিন ধির্মের৷ [সুত্র-উইকিইপিডিয়া]

যাইহোক, তাঁরা কোন ধর্মের, কোন দেশি এবং কোন ব্যান্ড এগুলো মুল বিষয় নয়৷ মুল বিষয় হলো আপনি গান শুনছেন৷ সেটা যে গান হোক এবং যার গানই হোক৷ হিরো আলমের গান হোক কিংবা BTS এর গান৷ কোন গানই শোনা জায়েজ নেই৷

অনেক আলেম বে-আলেমের প্রোফাইলে হিরো আলমের গান দেখি৷ তাঁরা হিরো আলমের গান শেয়ার করে আর তাকে নিয়ে ফান করে৷ হয়তো তাঁরা মনে করে এতে গুনা হবে না৷ এর কারণ হলো, তাঁরা জাস্ট ফান করছে৷ অথচ এর মাধ্যমে তাঁরা নিজেরা গান শুনছে এবং অপরকেও গান শুনাচ্ছে৷

এরপরে যারা ভিনদেশীদের ভিন্ন ভাষার গান শুনে৷ তাঁরা না সে গানের ভাষা বুজে৷ না কোন মর্ম বুঝে৷ আর না কোন অর্থ বুঝে৷ না বুঝে শুধুই উল্টা-পাল্টা নাচা-নাচি ফালাফালি করে৷

আর এটা যদি বলি তবে বলে, গান মানুষ মনের তৃপ্তির জন্য, আনন্দের জন্য শুনে৷ গানের মর্ম বুঝার বিষয় না৷

কিন্তু, একজন মুসলিম হিসেবে জানা দরকার, সে গানের ভিতরে লুকিয়ে আছে ঈমান বিধ্বংসী শিরকি লিরিক্স৷ যে গান কোন মুসলিম যদি না বুঝেও শুনে এবং বলে তবে তাঁর ঈমান চলে যাবে৷ এজন্য এ সকল গান শুনা বন্ধ করা উচিত৷

সেই সাথে হিরো আলম কিংবা কোন আউল বাউল ফাউলের গানও যদি শুনে থাকেন৷ তবে সে গান শোনাও বন্ধ করা উচিত৷

কেননা, একজন মুমিন কখনো গান শুনে আত্মতৃপ্তি পেতে পারে না৷ তাঁর আত্মতৃপ্তি হবে আল্লাহর যিকিরে, রাসুল সাঃ এর উপর দরুদ পরে৷ তাই বলব_ জাস্ট ফান করে, আমলগুলো জাস্ট নষ্ট করবেন না৷

পোষ্টটি শেয়ার করুন....
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই সম্পর্কে আরো দেখুন

guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
error: Content is protected !!
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x